ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটূক্তিকারী শরিয়ত বয়াতিকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ!

ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটূক্তি এবং মহানবী (সা.) সম্পর্কে আপত্তিকর মন্তব্যের অভিযোগ করা মামলায় গ্রেপ্তার শরিয়ত সরকার (৩৫) ওরফে শরিয়ত বয়াতির জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেছেন আদালত।

আজ বুধবার বিকেল সাড়ে ৩টায় টাঙ্গাইল জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোহাম্মদ শওকত আলী চৌধরী এ আসামির জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

বাদীপক্ষের আইনজীবী মালেক আদনান আমাদের সময়কে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

এর আগে আজ দুপুর ২টার দিকে শরিয়ত বয়াতিকে আদালতে হাজির করা হয়। পরে আসামিপক্ষের আইনজীবী আনিছুর রহমান হুমায়ুন জামিন আবেদনের পক্ষে যুক্তি উত্থাপন করেন। পরে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী পিপি এস আকবর খান জামিনের বিরোধিতা করে যুক্তি উপস্থাপন করলে বিচারক জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

গ্রেপ্তারের পর গত ১৪ জানুয়ারি তিন দিনের রিমাণ্ড শেষে টাঙ্গাইলের বিচারিক হাকিম আদালতের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আকরামুল ইসলাম শরিয়ত বয়াতিকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছিলেন।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ২৪ ডিসেম্বর ঢাকার ধামরাই উপজেলার রৌহাট্টেক এলাকায় পীর এ কামেল হযরত হেলাল শাহ’র দশম বাৎসরিক মিলন মেলা-২০১৯ উপলক্ষে আয়োজিত বয়াত গান অনুষ্ঠানে ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে নবী রাসুল (সা.) ও ইমামদের নিয়ে আপত্তিকর বক্তব্য দেন শরিয়ত বয়াতি। তার এমন বক্তব্যে মুসলমানের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। এ ছাড়া শরিয়ত বয়াতিকে গ্রেপ্তারের দাবিতে তার নিজ এলাকায় কয়েকটি স্থানে বিক্ষোভ সমাবেশও হয়। শরিয়ত টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার আগধল্যা গ্রামের বাসিন্দা।

পরে শরিয়ত বয়াতির বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতে আগধল্যা গ্রামের জামে মসজিদের ঈমাম মাওলানা ফরিদুল ইসলাম মির্জাপুর থানায় মামলা দায়ের করেন। পরবর্তীতে গত ১০ জানুয়ারি শুক্রবার রাতে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় পুলিশ শরিয়ত বয়াতিকে ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার সিডস্টোর এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে।