বার্সেলোনা সভাপতির সঙ্গে দেখা করবেন না আর্জেন্টাইন তারকা লিওনেল মেসি

সেই ১৩ বছর বয়সে লা মাসিয়ার যুব দল দিয়ে বার্সেলোনায় পা রাখেন লিওনেল মেসি। কাতালান ক্লাবটির সঙ্গে তার সম্পর্ক ২০ বছরের। এই সময়কালে নিজের ফুটবলশৈলী দিয়ে আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড হয়ে উঠেছেন বার্সার প্রতীক। প্রাণের সেই ক্লাব ছেড়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মেসি। ‘রাগ করে’ নু্য ক্যাম্প ছাড়ার অনুরোধ জানালেও কাতালান ক্লাবটি কি আর তা মেনে নেবে! ‘ঘরের ছেলে’কে বুঝিয়ে ঘরে রাখতে বার্সা সভাপতি জোসেপ মারিয়া বার্তোমেউ দেখা করতে চেয়েছেন। কিন্তু স্প্যানিশ ক্রীড়া দৈনিক মার্কার খবর, ক্লাব সভাপতির সঙ্গে দেখার করার ইচ্ছা নেই ছয়বারের ব্যালন ডি’অরজয়ী মেসির।

গত মঙ্গলবার বুরোফ্যাক্সের মাধ্যমে নু্য ক্যাম্প ছাড়ার ইচ্ছার কথা বার্সেলোনাকে জানিয়েছেন মেসি। তার এই সিদ্ধান্ত সংবাদমাধ্যমে প্রকাশের পর ঝড়ের বেগে ছড়িয়ে পড়ে সারাবিশ্ব্বে। এমনকি তার ভবিষ্যৎ গন্তব্য নিয়েও শুরু হয়ে যায় নানা গুঞ্জন। ম্যানচেস্টার সিটি, প্যারিস সেন্ট জার্মেই ও ইন্টারের মিলানকে ভাবা হচ্ছে তার নতুন ঠিকানা।

তবে যে ক্লাবই নিতে আগ্রহী থাকুক না কেন, কাজটা সহজ হবে না। কারণ বার্সেলোনায় মেসির বাইআউট ক্লজ ৭০০ মিলিয়ন ইউরো। তবে চুক্তির একটি ধারায় ‘ফ্রি ট্রান্সফার’ শর্ত থাকায় সেটি প্রয়োগ করার চেষ্টা করছেন মেসি। যদিও বার্সেলোনা তাদের সেরা খেলোয়াড়কে কোনোভাবে ছাড়তে রাজি নয়। ক্লাব সভাপতি এজন্য মেসির সঙ্গে সামনাসামনি দেখা করতে চেয়েছেন।

দুদিন আগে কাতালুনিয়া রেডিওর খবর ছিল, মেসির সঙ্গে দেখা করতে যাচ্ছেন বার্তোমেউ। ছয়বারের ব্যালন ডি’অরজয়ী কেন ছেড়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কিংবা তার কী চাওয়া আছে, সেইসব জানতে সরাসরি মেসির সঙ্গে কথা বলবেন বার্সা সভাপতি। বার্তোমেউ দলের অধিনায়ককে নিশ্চিত করতে চান, সামনের মৌসুমে তাকে কেন্দ্র করেই সাজানো হচ্ছে সব পরিকল্পনা। এতদিন দল থেকে যে সুবিধা পেয়েছেন, সবকিছু থাকবে ‘শতভাগ’।

আগস্ট ২৯, ২০২০ at ১৪:১০:৩৮ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আক/বাআ/এনআফটি